Home > featured > পেশা দেওয়াল লিখন, নেশা অভিনয়, জীবন যুদ্ধের অন্য কাহিনী রায়গঞ্জের তরুণের

পেশা দেওয়াল লিখন, নেশা অভিনয়, জীবন যুদ্ধের অন্য কাহিনী রায়গঞ্জের তরুণের

 

NBlive রায়গঞ্জঃ ভোটের আগমনী বার্তা নিয়ে ক্রমশ রঙিন হয়ে উঠছে শহরের বিভিন্ন দেওয়াল। শিল্পীর শিল্পসত্বা, রুচি বোধকে হাতিয়ার করে নির্বাচনী প্রচারে নেমে পড়েছেন শাসক থেকে বিরোধীরা। সোশ্যাল মিডিয়ার যুগেও প্রচারের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম এখনও সেই দেওয়াল লিখনই। মানুষের কাছে প্রার্থীর প্রথম ইম্প্রেশন অনেকটাই নির্ভর করে এই দেওয়াল লিখনের মধ্য দিয়েই। তাই নির্বাচন আসতেই ডাক পড়ে শহরের দেওয়াল লিখন শিল্পীদের।

 

 

প্রসেনজিৎ দাস। রায়গঞ্জ পুরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের মিলনপাড়া এলাকার বাসিন্দা। আগামী কয়েকদিন যাঁর সঙ্গী সবুজ, গেরুয়া, কালো, লাল রঙ ও তুলি। আপাতত দুটি ওয়ার্ডের বেশ কয়েকটি দেওয়ালকে রাজনৈতিক আঁচে বর্ণময় করে তোলার বরাত পেয়েছেন তিনি। তাই সকাল হতেই রোজ বেড়িয়ে পড়ছেন নিজের শিল্প বোধকে কাজে লাগিয়ে দাঁত বের করে থাকা দেওয়াল গুলিকে ছন্দময় করতে। তবে পেশা দেওয়াল লিখন হলেও নেশা তাঁর অভিনয়।

 

 

দেওয়াল লিখনে ব্যস্ত প্রসেনজিৎ

 

 

তুলসিপাড়ার বাসিন্দা প্রসেনজিতের পরিবার বলতে তাঁর মা। বাড়ির পাশেই ছোট্ট একটি দোকান চালিয়ে স্বল্প কিছু রোজগার করেন তিনি। তবে বাড়ির প্রধান উপার্জনকারী প্রসেনজিত নিজেই। এদিন সকালে রায়গঞ্জের বিবিডি মোড় লাগোয়া এলাকায় দেওয়ালে তুলির টান দিতে দিতেই প্রসেনজিৎ জানান, সংসারে অভাব থাকার কারণে পড়াশুনো বন্ধ করে কাজে লেগে পড়ি অল্প বয়সেই। তবে কোনও কাজই স্থায়ী হয়নি। শহরের একটি নাটকের দলের সাথে যুক্ত হই। সেখানে অভিনয় করি। নাটকের প্রয়োজনে কোরাসে গলা মেলাই। তবে এই সবকিছুর মাঝে উপার্জনের কথাও ভাবতে হয়। দেওয়াল লিখনের কাজ করি। চেষ্টা করি, দেওয়াল লিখনের মধ্য দিয়ে নিজের শৈল্পিকসত্বাকে সকলের কাছে তুলে ধরতে।

 

উন্নত প্রযুক্তির যুগে দেওয়াল লিখে সংসার চলে? প্রশ্নটা প্রসেনজিৎকে করা হলে তাঁর অকপট উত্তর, না, একদমই চলে না। নির্বাচন এলেই মূলত আমাদের খোঁজ হয়। তবে সারা বছরই টুকটাক কাজ হাতে থাকে। যদিও তা দিয়ে সংসার কোনও ভাবেই চালানো সম্ভব নয়। তবে? সেই সময় উপার্জনের রাস্তা? যে কোনও অনুষ্ঠানের মঞ্চ সজ্জা, ঘরের ডেকোরেশন, অনুষ্ঠান বাড়ি সাজিয়ে তোলা, পূজার মরশুমে রাস্তাজুড়ে আলপনা দেওয়ার ডাকও পাই। তবে কোনও টাই স্থায়ী নয়। এতকিছুর মাঝে নাটকে অভিনয় করার সময় হয়? হ্যাঁ, নাটকের জন্যই তো বেঁচে থাকা। সেটার জন্য সময় বের করতেই হয়।

 

 

নীল রঙের ফতুয়া পড়ে নাটকের মঞ্চে প্রসেনজিৎ

 

নির্বাচনের মরশুমে দেওয়াল লিখনের বরাত কেমন? প্রসেনজিৎ জানান, আপাতত একটি রাজনৈতিক দলের জন্যই কাজ করছি। দুটি ওয়ার্ডের বেশ কয়েকটি দেওয়ালে লেখার কাজ পেয়েছি। পারিশ্রমিক? রঙ কেনার খরচ ধরে প্রতিটি দেওয়ালের জন্য দুইশত টাকা মেলে। প্রসেনজিৎের দাবী, আরও একটি রাজনৈতিক দলের সাথে কথা চলছে। সেই কাজটির বরাত মিলবে বলেই আশাবাদী তিনি। নাটকের মহড়া চলছে? হ্যাঁ, চলছে। কয়েকদিন আগেই দলের সাথে ময়নাগুড়িতে গিয়েছিলাম নাটক মঞ্চস্থ করতে। তবে আপাতত ‘ওপেন এয়ার থিয়েটার ফেস্ট’এর প্রস্তুতিতে ব্যস্ত রয়েছি। দেওয়াল লিখনের কাজ সেরেই থিয়েটার ফেস্টের কাজে যোগ দিচ্ছি।

আরও দেখুন

LIVE: ভোট গণনা শুরু রায়গঞ্জে

    NBlive রায়গঞ্জঃ গণনা শুরু রায়গঞ্জে। চতুর্মুখী লড়াইয়ে সব পক্ষেই জেতার বিষয়ে আশাবাদী। তবে …