Home > featured > দাড়িভিটে হত পরিবারদের সাথে দেখা করলেন স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকারা
দাড়িভিটে হত পরিবারদের সাথে দেখা করলেন স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকারা

দাড়িভিটে হত পরিবারদের সাথে দেখা করলেন স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকারা

দাড়িভিটে হত পরিবারদের সাথে দেখা করলেন স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকারা

দাড়িভিটে হত পরিবারদের সাথে দেখা করলেন স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকারা

 

NBlive ইসলামপুরঃ গুলিবিদ্ধ হয়ে দুই ছাত্রের মৃত্যুতে মর্মাহত শিক্ষকরা । দীর্ঘ একমাস ১৭ দিন পর নিহত রাজেশের বাড়িতে গিয়ে পরিবারকে সমবেদনা জানালেন দাড়িভিট উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক শিক্ষিকা এবং বিদ্যালয়ের কর্মীরা।

দাড়িভিটে গুলিবিদ্ধ হয়ে দুই ছাত্রের মৃত্যুর পর আজ পর্যন্ত বিদ্যালয়ে পঠন পাঠন চালু হয় নি। বিদ্যালয়ের অচলাবস্থা কাটাতে একাধিকবার বৈঠক হয়েছে। নিহত তাপসের মা মঞ্জু বর্মন জানিয়েছিলেন গুলিবিদ্ধ হয়ে দুই ছাত্রের মৃত্যু হলেও শিক্ষকেরা একবারের জন্য তাঁদের সঙ্গে দেখা করতে আসেননি। রাজ্য শিক্ষা দফতর ইতিমধ্যেই প্রধান শিক্ষক এবং সহকারি প্রধান শিক্ষককে সাসপেন্ড করেছে। আগামী ১০ নভেম্বর পুজার ছুটি কাটিয়ে বিদ্যালয় খোলার কথা। ১০ নভেম্বরেই দাড়িভিট বিদ্যালয় খোলার নির্দেশ দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ও।

 

 

 

দাড়িভিটে হত পরিবারদের সাথে দেখা করলেন স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকারা

 

দাড়িভিটে হত পরিবারদের সাথে দেখা করলেন স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকারা

 

এদিকে আগামীকাল বৃহস্পতিবার দাড়িভিটে সর্বদলীয় বৈঠকের ডাক দিয়েছেন মহকুমা শাসক। স্কুল খোলার বিষয়ে সেই বৈঠকে আলোচনা হওয়ার কথা রয়েছে। এমন পরিস্থিতির মাঝেই বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা নিহতদের পরিবারকে সমবেদনা জানাতে তাদের বাড়িতে গেলেন। বিদ্যালয়ের এক শিক্ষক জানিয়েছেন, নিজেদের ইচ্ছায় নিহত ছাত্রদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে এসেছেন। নিহতের পরিবার জানিয়েছেন, দুঃখপ্রকাশ করতে শিক্ষক শিক্ষিকারা তাঁদের বাড়িতে এসেছিলেন। এলাকার অভিভাবকদের সঙ্গে তাঁরা দেখা করেছেন।

 

দাড়িভিটে হত পরিবারদের সাথে দেখা করলেন স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকারা

 

 

আরও দেখুন

ফুল দিয়ে সাজানো হলো চিতা, বন্ধ শবদাহ, সন্ধ্যায় মোমবাতি প্রজ্বলন

ফুল দিয়ে সাজানো হলো চিতা, বন্ধ শবদাহ, সন্ধ্যায় মোমবাতি প্রজ্বলন

  NBlive রায়গঞ্জঃ প্রয়াত নেতাকে শ্রদ্ধা জানাতে বন্দর শ্মশান ঘাটের একটি চুল্লির ব্যবহার একদিনের জন্য …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *